Saturday, November 14th, 2020

Astro Research Centre

দীপাবলি, বা, দেওয়ালি হল অন্যতম এক হিন্দু ধর্মীয় উৎসব।

ধনকুবের

কথায় বলে ধনকুবের ৷ তাঁর মতো ধনী ব্যক্তি পৃথিবীতে আর দু’টো ছিল না ৷ শাস্ত্র মতে কুবের ছিলেন এক অতি সাধারণ মানুষ। শিবের কাছ থেকে বর লাভ করে এই বিপুল সম্পত্তির মালিক হয়ে উঠেছিলেন কুবের ৷ মহাদেব কুবেরকে আশীর্বাদ করলেন দুনিয়ার সব সেরা সম্পদ তিনিই পাবেন ৷

কিন্তু এই বিপুল সম্পদ পেয়ে কুবের বিগড়ে গেলেন ৷ তাঁর মাথা গেল ঘুরে ৷ তখন শিব ঠিক করলেন শাস্তি দেবেন তাঁর ভক্তকে ৷ এদিকে অর্থের গরমে প্রায় অন্ধ হয়ে কুবের তখন স্বর্গের সমস্ত দেবতাদের নিমন্ত্রণ করেছেন খাওয়াবেন বলে ৷ সেই আমন্ত্রণ সভায় হাজির হলেন শিবের পুত্র গণেশ ৷ গণেশের সে সময় প্রচণ্ড খিদে পেয়েছিল ৷ তিনি সমস্ত দেবতাদের সব খাবার তো খেলেনই, তার উপর কুবেরের প্রায় সব সম্পদও খেয়ে ফেললেন ৷ শেষে তিনি কুবেরকেই খেতে উদ্যোত হলেন ৷ শেষ পর্যন্ত শিব আবির্ভূত হয়ে গণেশকে থামালেন ৷ কুবেরও তাঁর ভুল বুঝতে পারলেন ৷

কুবের ক্ষমা চাইলেন মহাদেবের কাছে ৷ মহাদেব তাঁর ব্যবহারে প্রসন্ন হয়ে বর দিলেন যে কোনও ভক্ত যদি মন প্রাণ দিয়ে তাঁর নাম করেন, তাহলে কুবেরের আশীর্বাদে সেই ভক্তের জীবন খুশিতে ভরে উঠবে ৷ ভরে উঠবে তাঁর কোষাগারও ৷ বিশেষ কিছু মন্ত্র আছে, যেগুলি জপ করা শুরু করলে ধন দেবতা কুবের এতটাই প্রসন্ন হন যে তাঁর ভক্তের মনের সব ইচ্ছা পূরণ হতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে অনেক অনেক টাকার মালিক হয়ে ওঠার স্বপ্নও পূরণ হয়।

* . কুবের ধন মন্ত্র: "ওম শ্রিম ওম হ্রিম শ্রিম হ্রিম ক্লিম বিত্তেশ্বরায় নমহ" ৷ এই মন্ত্রটি জপ করলে মনের সমস্ত ইচ্ছা আকাঙ্খা পূর্ণ হয় ৷
* কুবের মন্ত্র: "ওম ইকশয়া কুবেরায় ভাইশ্রাবানায় ধন ধান্যে ধিপাত্যয় ধন ধান্যে সমৃদ্ধম মে ধি দপয় সোয়াহা", এই মন্ত্রটি জপ করা শুরু করলে পরিবারে সুখ-সমৃদ্ধির ছোঁয়া লাগতে সময় লাগে না।
• মহালক্ষ্মী কুবের মন্ত্র: প্রতিদিন এক মনে এই মন্ত্রটি পাঠ করা শুরু করলে কুবের দেব তো প্রসন্ন হনই, সেই সঙ্গে মা লক্ষ্মীও খুব খুশি হন। ফলে গৃহস্থে প্রবেশ ঘটে মায়ের। আর সে কারণেই "ওম শ্রি মহা লক্ষ্মী চ ভিদমাহে বিষ্ণু পত্নী চ ধিমাহে তানো লাক্ষ্মী প্রাচোদায়াত ওম", এই মন্ত্রটি জপ করতে হবে প্রতিদিন!
• গায়েত্রী কুবের মন্ত্র: "ওম ইক্ষ রাজ্য ভিদমাহে অলিকাদিস্যয়া ধিমাহে তানো কুবের প্রাচোদায়াত", এই মন্ত্রটি পাঠ করা শুরু করলে কুবের দেবের আশীর্বাদে বুদ্ধির ধার তো বাড়েই, সেই সঙ্গে মনের জোর বাড়তেও সময় লাগে না।
• কুবের মন্ত্র জপ করার নিয়ম: এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে প্রতিদিন কুবের দেবের পুজো করার পর যদি এই মন্ত্রগুলির কোনও একটি পাঠ করা হয়, তাহলে দ্রুত উপকার মেলার সম্ভাবনা বাড়ে। শুধু তাই নয়, একবার মন্ত্র জপ শুরু করলে কম করে ২১ দিন পাঠ করতে হবে।


ধন কথার অর্থ হল ধনসম্পত্তি। আর তেরাস বলতে বোঝায় ত্রয়োদশীর দিনকে। অর্থাৎ কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের তেরো নম্বর দিনকে ইঙ্গিত করে এটি। দীপাবলির উৎসব চলে পাঁচ দিন ধরে।

ধনতেরাসের ইতিহাস খুঁজতে আমরা চলে যাই পুরাণের গভীরে। ধন সম্পদের দেবতা কুবের। তাই এ দিন কুবেরও লক্ষ্মীর আরাধনা করা হয়।

কথিত রয়েছে, দুর্বাশা মুনির অভিশাপে স্বর্গ থেকে লক্ষ্মীদেবীকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। তিনি সাগরে গিয়ে বাস শুরু করেন। এর পরে রাক্ষসদের সঙ্গে লড়াই করে দেবতার ফিরে পান তাদের লক্ষ্মীকে।

অনেকে আবার বলেন, প্রাচীন রাজা হিমের ছেলের ভাগ্যে লেখ ছিল বিয়ের পরে চতুর্থ রাতে সর্প দংশনে তার মৃত্যু হবে।

তখন সদ্য বিবাহিতা স্ত্রী স্বামীর প্রাণ বাঁচাতে নিজের যাবতীয় গয়না অলংকার ঘরের দরজায় জড়ো করে রেখে দেন। এবং প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখেন দুয়ারে। যম প্রবেশ করতে গেলে সোনার ছটায় তার চোখ ধাঁধিয়ে যায়। সেই থেকে ধনসম্পদের আরাধনা শুরু হয়।

বলা হয় এ দিন ধাতু কিনলে তার জৌলুসে আকৃষ্ট হয়ে মা লক্ষ্মী নিজে আসেন সেই বাড়িতে। তাই এ দিন মূল্যবান ধাতু কে‌নার ধুম পড়ে। সোনার-রূপোর দোকানে চলে নানা আকর্ষণীয় অফার।

অনেকেই সমৃদ্ধির বিশ্বাসে এ দিন সোনা বা রূপোর গয়না থেকে কয়েন বা প্রতীকী কিছু কেনেন। অনেকে যারা দামি ধাতু কিনতে পারেন না তারা কম দামি পিতল, তামার দ্রব্যও কেনেন।

বাড়ি বাড়ি লক্ষ্মীদেবীর আরাধনা হয়। সবশেষে চোদ্দটি প্রদীপ জ্বালিয়ে ঘরের অন্ধকার দূর করা হয়।


দীপাবলি, বা, দেওয়ালি হল অন্যতম এক হিন্দু ধর্মীয় উৎসব। সারা বিশ্বে জুড়ে কম-বেশি এই আলোর উৎসব পালন করা হয়। আশ্বিন মাসের কৃষ্ণা ত্রয়োদশীর দিন ধনতেরাস অথবা ধনত্রয়োদশী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দীপাবলি উৎসবের সূচনা হয়।

কার্তিক মাসের শুক্লা পক্ষে, দ্বিতীয়া তিথিতে ভাইফোঁটা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই উৎসব শেষ হয়।

নবরাত্রি উৎসব অথবা বাঙালিদের দুর্গোৎসব শেষ হওয়ার ১৮ দিন পর দীপাবলি শুরু হয়। গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে, মধ্য-অক্টোবর থেকে মধ্য-নভেম্বরের মধ্যে দীপাবলি অনুষ্ঠিত হয়।

"দীপাবলি" নামটির অর্থ "প্রদীপের সমষ্টি"। এই দিন হিন্দুরা ঘরে ঘরে ছোটো মাটির প্রদীপ জ্বালেন। এই প্রদীপ জ্বালানো অমঙ্গল বিতাড়নের প্রতীক।

বাড়িঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে সারা রাত প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখলে ঘরে লক্ষ্মী আসেন বলে উত্তর ভারতীয় হিন্দুরা বিশ্বাস করেন। বাংলার দীপান্বিতা কালীপূজা বিশেষ জনপ্রিয়।

এই উৎসব সাড়ম্বরে আলোর উৎসব হিসেবে পালিত হয়। ১৭৭৭ খ্রিষ্টাব্দে কাশীনাথ রচিত শ্যামাসপর্যাবিধিগ্রন্থে এই পুজোর সর্বপ্রথম উল্লেখ পাওয়া যায়।

কথিত আছে, নদিয়ার রাজা কৃষ্ণচন্দ্র রায় অষ্টাদশ শতকে তার সকল প্রজাকে শাস্তির ভীতি প্রদর্শন করে কালীপুজো করতে বাধ্য করেন। এই উৎসবের শুরুর দিন পালন করা হয় ধনতেরাস উৎসব।

ধন মানে সম্পদ আর তেরাস কথার অর্থ হল ত্রয়োদশী। কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের ১৩তম দিন পালন করা হয় ধনতেরাস।

ধনতেরাসের দিন শুধু সোনা কিনলেই হবে না, এই উৎসবের রয়েছে বেশ কিছু নিয়মও।

দীপাবলির আগের দিন ধনত্রয়োদশী বা ধনতেরাস হিসেবে পালন করা হয়। এই দিন অর্থ ভাগ্য উন্নতি করতে লক্ষ্মী ও কুবের-এৎ পুজো করা হয়।

দেশের বিভিন্ন জায়গায় এই পুজো বিভিন্ন ভাবে পালন করা হয়। এইদিনে সোনা, রূপো বা গয়না কেনার প্রচলন বেশি থাকলেও অনেকেই এই দিনে বাড়ির অন্যান্য জিনিসপত্র কেনেন। এই দিনেই কুবের তাঁর আরাধ্যা দেবী লক্ষ্মী পুজো করে ধনপতি হয়েছিলেন।

সেই থেকেই বিশেষ এই তিথিতে ধনসম্পদ বৃদ্ধির আশায় পালন করা হয় ধনতেরাস।

এই দিনে সারা বাড়ি ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে
বাড়ির মূল প্রবেশদ্বারের সামনে রঙ্গোলী দিতে হবে
লক্ষ্মীর পাঁয়ের চিহ্ন আঁকতে হবে দেবীকে আহ্বাণ
অকাল মৃত্যু ঠেকাতে এদিনে যমরাজের উদ্দেশ্যে জ্বালানো হয় প্রদীপও।

একটি ছোট ঘটে নতুন কেনা ধাতু বা গয়না নিয়ে তাতে সামান্য চাল, সুপারী, ১৩ টি পদ্মবীজ, গঙ্গাজল, দিয়ে উপর থেকে ফুল, সোনা বা রূপোর কয়েন রাখতে হবে
যদি নতুন গয়না না থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি পুরনো গয়নাও ব্যবহার করতে পারবেন।
এই পুজো বা আচার পালন করার শ্রেষ্ঠ সময় হল প্রদোষ কাল।



Astro Research Centre
Lob Mukherjee
Govt.Enrolled &
Enlisted Astrologer

আপনি কি জানতে চান আপনার ভাগ্যের অনুকূল ও প্রতিকূল পরিস্থিতি গুলি কি কি?? এবং অনলাইন poriseva পরিষেবা পেতে চান । তাহলে এখুনি আপনার জন্ম তারিখ , জন্ম সময় , জন্ম স্থান এই website www.arcsm.in গিয়ে ৫০০/১০০০/১৫০০টাকা দিয়ে registration করুন আপনা কে সমস্ত বিষয় সম্পর্কে জানানো হবে ..ও কুন্ডলী (pdf )ও প্রতিকার লিখে প ঠানো হবে।

***পরবর্তী কালে প্রতি প্রশ্নের জন্য 200 লাগবে

Good Morning , প্রিয় পাঠক, আপনাদের জ্যোতিষ সংক্রান্ত কোনো কিছু জানার থাকলে ইনবক্স ও ম্যাসেঞ্জারে না লিখে হোয়াটসআপ no 8906959633 নিজের নাম, জন্ম তারিখ, সময়, ও জন্ম স্হান লিখে পাঠাবেন আমি সময় মত উত্তর দেব অনলাইনে ও পেজে রাশিফলও লগ্ন ফল প্রতিদিন পাবেন । খুব প্রয়োজন না হলে ফোন করবেন না :- জয় মা তারা।

বিঃ দ্রঃ1) যাদের জন্ম তারিখ, সাল,সময় সব ঠিক আছে তারা পেজের রাশিফল দেখবেন* Moon Sign চন্দ্র রাশি

2) যাদের জন্ম তারিখ, সাল,সময় সব ঠিক জানা নাই তারা ইউটিউব এ রাশিফল দেখবেন


হোয়াটসআপ নাম্বার 8906959633
অল্টারনেট নাম্বার 9593165251



Blog Url:
https://arcsm.in/blog.php?blog=20201114121454